Select Page

আসসালামুয়ালাইকুম, কেমন আছেন? আশাকরি ভালো আছেন। আমার ওয়েবসাইটে এটি প্রথম ব্লগ যার মাধ্যমে আপনারা এসইও সম্পর্কে সঠিক ধারনা পাবেন। আজকে প্রথম ব্লগ তাই আজকে শুধু এসইও এর সাধারন বিষয় গুলোর প্রতি ধারনা দিবো। আশাকরি আপনারা আমার সাথে থাকলে অনেক ভালো ভালো কিছু টিপস পাবেন। তো চলুন শুরু করা যাক।

এসইও কি?

 

এখানে অনেকেই আছেন যারা নতুন যারা বোঝেন না যে এসইও টা আসলে কি তাদের জন্য বলছি। এসইও বা (SEO) মানে হলো Search Engine Optimization । বর্তমানে প্রতিটি মানুষই তার প্রয়োজনীয় তথ্য খুজে পাওয়ার জন্য গুগল এর সাহায্য নেয়। যার ফলে গুগল তার সার্চিঞ্জন রেজাল্ট পেজে বেশ কিছু সাইটের ফলাফল প্রদান করেন। কোন ওয়েবসাইট প্রথমে দেখা যায় আবার কোন ওয়েবসাইট দেখা যায় গুগলের দ্বিতীয় পাতায়।

আমরা যে ওয়েবসাইট টি প্রথমে দেখা যায় কখনো কি ভেবে দেখেছি যে কেন এই নির্ধারিত ওয়েবসাইট টি প্রথমে দেখাচ্ছে এখানে তো ২য়

পেজ বা তার পরের ওয়েবসাইট গুলো ওতো দেখাতে পারত। কিন্তু তাদের কে গুগল ১ নাম্বার পজিশনে না এনে ঐ নির্ধারিত ওয়েবসাইট কে প্রথমে এনেছে যার কারন ওই ওয়েবসাইট টিকে এসইও করা হয়েছে।

মোট কথা কোন ওয়েবসাইটকে সার্চ ইঞ্জিনের প্রথমে প্রদর্শিত করার জন্য যেসব প্রক্রিয়া গুলো অবলম্বন করা হয় তাকেই এসইও বলে। যখন সার্চ দিয়ে মানুষ আপনার সাইট টিকে প্রথম দেখতে পাবে তখন আপনার সাইটে ভিজিটর বৃদ্ধি পাবে এবং আপনার ইনকাম ও বৃদ্ধি পাবে।

আমি মনে হয় বুঝাতে পেরেছি । কোন সমস্যা হলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না।

 

 

 

সার্চ ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে? 

 

পৃথিবীর সকল সার্চ ইঞ্জিন সৃষ্টি হয়েছে ইউজারদের প্রয়জনীয় তথ্য খুজে পাবার জন্য । আর  এই জন্যই ইউজার যেন তার  সবচেয়ে সেরা রেজল্ট টি পেতে পারে তার জন্য সার্চইঞ্জিন গুলো কিছু প্রোগ্রাম লিখে রাখে যেতি সকল সম্পর্কিত ওয়েবসাইট গুলোর মধ্য থেকে কিছু বিষয় তুলনা করে সাইট টিকে সার্চ ইঞ্জিনের প্রথমে নিয়ে আসে।

সেরা সাইট গুলকে সঠিক ভাবে নির্বাচিত করার জন্য তারা বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করেন। সকল বিষয়ে পর্যালোচনার পর যেকোনো সাইট কে গুগল প্রথম পেজে প্রদর্শিত করে।

 

(SEO) বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কত প্রকার ও কি কি? 

 

আপনি যদি যে এসইও বিষয়ে প্রশ্ন করেন যে SEO কত প্রকার? তাহলে সবাই উত্তর দিবেন যে এসইও দুই প্রকার অনপেজ আর অফ পেজ। এসইও যে অনপেজ এবং অফ পেজ তা নয়। এসইও দুই প্রকার যথাঃ  ১. অর্গানিক এসইও এবং ০২. পেইড এসইও। এখানে অর্গানিক এসইও আবার দুই প্রকারে ভাগ করা হয়েছে যার একটি হচ্ছে  ON Page SEO এবং আরেকটি হচ্ছে Off Page SEO ।

আসুন এবার যেনে নেওয়া যাক অর্গানিক এসইও এবং পেইড এসইও টা আসলে কি?

সার্চ ইঞ্জিনের যাবতিয় প্রক্রিয়াকে সম্পন্য করে সকল নিয়ম কানুন মেনে প্রথম স্থানে চলে আসাকেই অর্গানিক এসইও বলে। আর পেইড এসইও হল সার্চ ইঞ্জিনকে অর্থ প্রদান করে গুগলের প্রথমে নিয়ে আসাই হলো পেইড এসইও। আমরা অনেক সময় সার্চ দেওয়ার সময় খেয়াল করে দেখেছি যে কিছু কিছু প্রথম রেজাল্টের পাশে ছোট করে ad লেখা থাকে আর এই এড লিখার কারন হয়েছে সে এখানে আসার জন্য সার্চইঞ্জিন কে অর্থ প্রদান করেছেন যার কারনে সে প্রথমে অবস্থান নিয়েছেন।

একটু নিচেই দেখা যাবে আরো অনেক গুলো রেজাল্ট যাতে কোন ad কথাটি লেখা নেই তারা অর্গানির ভাবে গুগলে প্রথম পেজে এসেছে।

 

অনপেজ এবং অফপেজ এসইও কি? 

 

একটি ওয়েবসাইট কে গুগলের ফ্রেন্ডলি করে তোলার জন্য ওয়েবসাইটের ভেতরের যেসব কাজ করা হয়ে থাকে তাকে অনপেজ এসইও বলা হয় বা ওয়েব সাইটের ভেতর থেকে সাপোর্ট দেওয়াই হল অনপেজ এসইও।

অফপেজ হলো ওয়েবসাইটের বাহির থেকে সাপোর্ট দেওয়া এবং গুগল কে বোঝানো যে আমার ওয়েবসাইট টি এই এই বিষয়ে অভিজ্ঞ তুমি আমার সাইট টিকে প্রথম পেজে স্থান দেও।

 

কিভাবে এসইও শিখবেন? 

 

এসইও শেখার জন্য অনেক ভালো ভালো রিসোর্স আছে তাছাড়া আপনার ইংরেজি বোঝার স্কিল যদি মোটামুটি লেভেলের হয় তবে আপনি গুগল কে ব্যাবহার করে এসইও শিক্ষতে পারেন। আমার মতে গুগল থেকে আর বড় কোন ইউনিভার্সিটি নেই। এমন কিছু নেই যা গুগলে পাওয়া যায় না।

আর যদি আপনার নেট স্পিডটা একটু ভালো মানের হয় তবে আপনি ইউটিউব ব্যাবহার করতে পারেন। এখানে আপনাকে এসইও শেখানোর জন্য প্রচুর দক্ষ টিচার আপনার জন্য ওয়েট করছে । প্রায় মানুষই অনলাইন থেকে শিখে ধৈর্য হারিয়ে ফেলেন তাদের অনেকের গাইড লাইন এর দরকার হয় তারা ভালো একটি ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হয়ে যেতে পারেন।

৬০০০ থেকে ২০,০০০ টাকার মধ্যে খুব ভালোভাবে এসইও শিখতে পারবেন। ইতিমধ্যে আমাদের দেশে খুব ভালো ভালো ইনস্টিটিউট আছে যারা কিনা এসইও ট্রেনিং করিয়ে থাকেন।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট আইটি তাদের মধ্যে সুনাম ধন্য একটি প্রতিষ্ঠান। আপনি চাইলে তাদের সাহায্য নিতে পারেন।

 

কেন এই এসইও?  

 

ইতিমদ্ধ্যে আমাদের সকলেরই ধারনা হয়ে গেছে যে কেন আমাদের এসইও দরকার। বর্তমান বিশ্বে সার্চ ইঞ্জিন যেরকম গুরুত্বপূর্ন ঠিক তেমনি আপনার ব্যাবসার প্রসারের জন্য এসইও এর প্রয়োজন। আপনি জানেন কি আমাদের বাংলাদেশেই বিশ্বমানের এসইও এক্সপার্ট রয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে প্রচুর এসইও এক্সপার্টরা বিভিন্ন মার্কেট প্লেসে এসইও রিলেটেড কাজ করে সাবলম্বি হচ্ছে।

আমি শুধু একজন এসইও কনসাল্ট হিসেবে বলছি না আপনি এসইও নিয়ে আরো রিসার্চ করলে বুঝলে পারবেন যে এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন না থাকলে আপনার অবস্থান কোথায় থাকত। 

বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে যেমন <upwork,fiverr,freelancer > ভিজিট করলেই দেখতে পারবেন যে এসইও এর কাজ গুলোই সব থেকে তুলনামুলক ভাবে বেশি।

একটি ব্লগ বা ওয়েব সাইটে কন্টেন্ট লিখে গুগলের প্রথম পাতায় নিয়ে আসলে আপনার ওয়েবসাইটে প্রচুর ভিজিটর আসবে আর তখনি আপনি গুগলের বিজ্ঞাপনি সার্ভিস এডসেন্স বা অন্যান্য সব বিজ্ঞাপন ব্যাবহার করে আপনি মাসে ১০০ ডলার থেকে ১০০০ ডলার তার থেকেও বেশি আয় করতে পারবেন।

এফিলিয়েট ওয়েবসাইট করে তাকে এসইও করে আপনি মাসে হাজার হাজার ডলার আয় করতে পারবেন।

এসইও শেখার গুরুত্বপূর্ন দিক হচ্ছে এসইও শিখে শুধু একটি মাত্র কাজই করা নয় আপনি এসইও শিখে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে পারবেন। প্রতিদিন ৩-৬ ঘন্টা সময় দিলে আপনি সঠিক ভাবে এসইও শিক্ষতে পারবেন। তা ছাড়াও চাকুরি জিবীরাও কাজের ফাকে ফাকে বাড়তি কিছু আয় করতে পারবেন।

আজকে এই পর্যন্তই । আগামি পর্বে আমি আপনাদের এসইও এর গুরুত্বপূর্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো এবং আপনারা যদি আমার ওয়েবসাইটের সঙ্গে থাকেন তাহলে আমি আপনাদেরকে এসইও এর সকল বিষয়ের সম্পর্কে ধারনা দিতে পারবো এবং এসইও কিভাবে করে তা আপনাদের ধারাবাহিক ভাবে বুঝিয়ে দিতে পারবো।

লিখার মধ্যে কোন ভূল হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। এসইও বিষয়ে যেকোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট বক্সে জানাবেন। আপনারা মন্তব্য করলে নতুন কিছু দিতে উৎসাহিত হবো।

আর হ্যা লেখাটি যদি ভালো লাগে অবশ্যই পাশের শেয়ার বাটনে ক্লিক করে শেয়ার করে। অন্যদের জানার সুযোগ করে দিবেন।

সবাই ভালো থাকবেন। যেকোন প্রয়োজনে পাশে পেতে আমাকে ফেসবুকে পাবেন Nadim Mahmud